আমার সম্পর্কে কিছু কথা


আমি তিমন কুমার দে। জন্ম তারিখ ২২ নভেম্বর ১৯৯৬
জন্মস্থান গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানার  কোন এক গ্রামে।স্থায়ী ঠিকানা অজানা।একাকিত্বতা আমার পরম বন্ধু।তাই আমি আমার বন্ধুর সাথেই বেশি সময় কাটাই।কারন বন্ধুর সাথে থাকতে কার না ভালো লাগে!আর আমি আমার বন্ধুকেও খুব ভালবাসি হয়ত তাই তাকে ছেড়ে কোলাহলের সাথে বন্ধুত্ব করতে যাওয়া হয়।আমার  বন্ধুটা খুবই হিংসুটে সেও চায় না আমি ওকে রেখে অন্য কারো সাথে সঙ্গ দেই।ও চায় যেন আমি ওর পাশাপাশি সারাটা দিন থাকি।ওর আবদার পূরন করতেই হয়তো আমি ও ওর  তালের হয়ে গিয়েছি।আমি আবার বন্ধুদের মন জয় করে চলতে খুব ভালবাসি।এটা যে শুধু বন্ধুদের ভালবাসা একটু গুরুত্ব পাওয়ার জন্য।কিন্তু কখনোই নিজেকে গুরুত্বপূর্ন উপস্থাপন করার জন্য নয়।এই কথা গুলো আমার অন্য বন্ধুরা কতটা বুঝতে পারে কিনা বা আমি ওদের বুঝাতে পারি কিনা জানি না।তবে আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধুটিকে ঠিকই বুঝাতে পেরেছি।আর তাইতো সেও আমায় উজার করে ভালবাসা শুরু করেছে।আমাকে খুবই গুরুত্বও দেয় সে!
লেখালেখি সে বিষয়ে বিন্দু মাত্র জ্ঞান নেই। তবুও ইচ্ছে প্রকট!তাই হয়তো আমার এই উদ্যোগ আর যার কারনে আপনাকে আমার বকবক শোনাচ্ছি।হয়তো কখনো হারিয়ে যাবো বিস্মৃতির অতলে দুইদিন পাচদিন পরে আর কেউ স্বরন ও করবে না।কারন আমিতো কোন মহামানব নই।কোন জ্ঞানী ব্যক্তি বা গুণী ব্যক্তিও নই তাহলে কেনই বা মানুষ আমাকে মনে রাখবে?
মৃত্যুকে ভয় পাই কিন্তু অমর হওয়ারও সাধ্য নেই।তাই মৃত্যুর কাছে নিজেকে অনেক অসহায় লাগে।
আমার জিবনের প্রয়োজন খুবই সীমিত তাই কোন চাহিদাও খুজে পাই না।যা পুরন করতে উদ্যমী হবো।মানুষের চাহিদা নাকি অসীম এটা অর্থনীতির ভাষায় বলা হয়।যে ব্যক্তি উক্তিটি দিয়েছিলেন সে যদি আমাকে দেখত তাহলে তার এ উক্তি যে ভুল তা নিজেই মনে করত।
ঘুরতে খুব ভালবাসি কিন্তু বন্ধুকে রেখে হোক বা অর্থ অভাবে হোক।ভালবাসা ইচ্ছা সবই অপুর্নই থেকে যায়।মন চায় যদি হারিয়ে যেতে পারতাম কোন এক অজানা রহস্যের ভিতরে।কোন পাহাড়,নদী,সমুদ্র বা বন বনানীর মাঝো।তাহলে কতই না সুখ পেতাম!তবে এটা শুধু স্বপ্ন বাস্তবে কি হবে জানি না।

এখন সময় রাত ১২:০৫ টা। আমি কতটা অলত তা কি আপনারা বুঝতে পেরেছেন?
আমি ০১-০৮-১৯ তারিখে লেখা শুরু করেছি এবং শেষ করলাম ০২-০৮-১৯ তারিখ।১ টা দিন লেগে গেল!



ধন্যবাদ জানাই গুগল কে যে আমাকে তুলে ধরার জন্য এমন একটি সুযোগ করে দিয়েছে।আপনাকেও অসংখ ধন্যবাদ এতটা সময় আমাকে দেওয়ার জন্য।