অনার্স এবং ডিগ্রির মধ্যে যেসকল পার্থক্য

আমরা অনেকেই আছি যারা অনার্স এবং ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য সঠিকভাবে জানিনা। অনেকেই আছে এটি শুধু নাম এর পার্থক্য। এবং অনার্সের কোর্স চার বছর এবং ডিগ্রীর কোর্স তিন বছরের এইটুকুই জানি।যারা মূলত অনার্স এবং ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য ভালোভাবে জানেন  হয়তো আপনারা ভাবতে পারেন এটা কি রকম পোস্ট।
কিন্তু আসলে এমন অনেকেই আছেন যারা অনার্স এবং ডিগ্রির ভেতরের সত্যিকার অর্থে পার্থক্যটা ভালোভাবে এবং সুস্পষ্ট ভাবে জানেন না। তাই তাদের জন্য আজ আমাদের এই পোস্টটি।

মূলত যারা ইন্টার শেষ করেছেন এখন অনার্স অথবা ডিগ্রিতে ভর্তির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তাদের জন্য এই পোস্টটি দারুন ভাবে কার্যকর হবে। কারণ পোস্ট টি থেকে আপনি জানতে পারবেন অনার্স এবং ডিগ্রির মধ্যকার পার্থক্য। 
 অনার্স  শব্দের অর্থ হচ্ছে সম্মান। যদি আপনি অনার্সে অধ্যায়নরত অবস্থা থাকেন তাহলে  আপনি একজন সম্মান শ্রেণীর ছাত্র।  অনার্স হচ্ছে স্নাতক সম্মান।এবং ডিগ্রী হচ্ছে শুধুমাত্র স্নাতক।
 অনার্সে মূলত কোন বিষয়ের উপর খুঁটিনাটির সম্পূর্ণ ভাবে পড়ানো হয়।কিন্তু ডিগ্রীর ক্ষেত্রে তা নয়।ডিগ্রির ক্ষেত্রে শুধুমাত্র কোন বিষয়ের উপর কিছু কিছু অধ্যায় অাংশিক ভাবে পড়ানো হয়। আর এ কারণেই অনার্সে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা ডিগ্রী শিক্ষার্থীদের তুলনায় অধিক জ্ঞান সম্পন্ন হয়।
চাকরির ক্ষেত্রেও অনার্স এবং ডিগ্রির মধ্যে রয়েছে বিশাল ব্যবধান। চাকরি নিয়োগ  এর ক্ষেত্রে প্রতিটি ক্ষেত্রে ডিগ্রি শিক্ষার্থীদের তুলনায় অনার্সের শিক্ষার্থীরা অধিক মূল্যায়ন পেয়ে থাকে।
 অনার্স এর পরে মাস্টার্স এর কোর্স করতে সময় নেয় এক বছর।কিন্তু ডিগ্রির পর মাস্টার্স করতে সময় লাগে দুই বছর।এছাড়া বিভিন্ন সরকারি চাকরির বিয়োগের  ক্ষেত্রে ডিগ্রি এর পরে মাস্টার্স কমপ্লিট না করলে কোন সুফল পাওয়া যায় না। পক্ষান্তরে অনার্সের শিক্ষার্থীরা অনার্স কমপ্লিট করেই যে কোন চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে।
একজন অনার্সের ছাত্র অনার্স শেষ করে বিসিএস এ অংশগ্রহণ করতে পারে। কিন্তু একজন ছাত্র ডিগ্রি শেষ করে বিসিএস এ অংশগ্রহণ করতে পারবে না।একজন ডিগ্রি থেকে বিসিএস অংশগ্রহণ করতে হলে অবশ্যই তাকে মাস্টার্স কমপ্লিট করতে হবে। তবে ডিগ্রি ছাত্ররা মাস্টার্স কমপ্লিট করার পরে তা অনার্স এবং ছাত্রদের  সার্টিফিকেটের মান সমান হয়। 
তবে তাই বলে ডিগ্রি ছাত্র দের কখনো ছোট করে দেখা উচিত নয়।কারণ অনেক ডিগ্রির ছাত্র আছে। যারা ডিগ্রি করে মাস্টার্স কমপ্লিট করে অনেক বড় বড় জব করছে। পক্ষান্তরে অনার্সের ছাত্ররা বেকার হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

আমরা অনার্স এর সুবিধা গুলো তো জানলাম কিন্তু ডিগ্রিরও কিছু কিছু সুবিধা রয়েছে যেগুলো আমরা জেনে নেব।
অনার্সে পড়তে হলে অবশ্যই একজন নিয়মিত ছাত্র হতে হয়। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে আমাদের দেশে অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা ইন্টার পাশের পরে বিভিন্ন চাকরিতে যোগ দেয় এবং তার  পাশাপাশি লেখাপড়া করে থাকে। তাদের জন্য ডিগ্রী বেস্ট সলিউশন। কারণ ডিগ্রী শিক্ষার্থীদের অনার্স এর ছাত্রদের তুলনায় একটু কম পড়লেও চলে।
মাস্টার্স এর ক্ষেত্রে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আপনাকে অনার্স এর ক্ষেত্রে যে সাবজেক্ট দিবে তাই নিয়ে মাস্টার্স করতে হবে। কিন্তু ডিগ্রী শিক্ষার্থীদের এখানে পূর্ণ স্বাধীনতা দেয়া হয় তারা তাদের পাঠিত 3 সাবজেক্ট থেকে যে কোন একটির উপর মাস্টার্স কমপ্লিট করতে পারবে। 

ডিগ্রির শিক্ষার্থীদের জন্য সরকারিভাবে উপবৃত্তির ব্যবস্থা থাকলেও অনার্সের শিক্ষার্থীদের জন্য কোন উপবৃত্তির ব্যবস্থা নেই। 
সিজিপিএ এবং ক্রেডিট সিস্টেম চালু হওয়ার কারণে ডিগ্রির মান আগের তুলনায় অনেক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। 
তবে সর্বোপরি কথা হচ্ছে এই যে, আপনি অনার্স করুন বা ডিগ্রী করুন প্রত্যেক ক্ষেত্রে আপনাকে পড়ালেখা করতে হবে। এবং পড়ালেখা করে ভালো স্থান অর্জন করতে পারলে কোনটার এই মান খারাপ নয়। দৃঢ় মনোবল নিয়ে পড়ালেখা চালিয়ে যেতে হবে তাহলে সফলতা অর্জন করা সম্ভব হবে। ২০১২ সালে ডিগ্রী শেষে মাস্টার্স কমপ্লিট করে বিসিএস অংশগ্রহণ করে প্রথম স্থান অধিকার করেছিল একজন ডিগ্রী পড়ুয়া ছাত্র। 

অনার্স প্রথম বর্ষের সকল বিভাগের পরীক্ষার রুটিন ২০১৯

অনার্স প্রথম বর্ষের সকল বিষয়ের রুটিন।  2019 সালের সকল বিষয়ে রুটিন পাবেন এখানে।
অনার্স প্রথম বর্ষের সকল বিষয়ের রুটিন প্রকাশ করা হলো।
রেগুলার এবং ইরেগুলার দের সকলেরই কাজে লাগবে রুটিনটি। এবং এটব বিষয়ভিত্তিক না হওয়ার কারণে সকল বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাজে লাগবে।
 মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক এবং ডিগ্রি,  অনার্স, মাস্টার্স এর  সকল বিষয় বিভিন্ন নোটিশ, রুটিন রেজাল্ট পেতে আমাদের সাইটটিতে নিয়মিত ভিজিট করুন।

জেনে নিন বিভিন্ন দেশের রাজধানী ও মুদ্রার নাম Name of the capital and currency of all countries

চাকরির পরীক্ষা,বিসিএস পরীক্ষা এবং বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষায় বিভিন্ন দেশের রাজধানীর নাম এবং মুদ্রার নাম প্রশ্ন করা হয়। তাই আমাদের এগুলো জেনে নেওয়া অত্যন্ত জরুরী একটি বিষয়।
আসুন তাহলে জেনে নেই বিভিন্ন দেশের রাজধানীর  নাম এবং মুদ্রার নাম।
বিভন্ন দেশের রাজধানী এবং মুদ্রার নাম
নিচে বিভিন্ন দেশের রাজধানী ও মুদ্রার নামের ছক দেওয়া হলো-
দেশের নামরাজধানীর নামমুদ্রার নাম
বাংলাদেশেঢাকাটাকা
ভারতনয়াদিল্লীরুপি, টকা, টাকা, টঙ্কা
শ্রীলঙ্কাশ্রী জায়াবর্ধনেপুরা কোট্টেরুপি
পাকিস্তানইসলামাবাদরুপি
মালদ্বীপমালেরুফিয়াহ
নেপালকাঠমান্ডুরুপি
ভুটানথিম্পুগুলট্রাম
আফগানিস্তানকাবুলআফগানী
মায়ানমারনাইপিদাওক্যত
থাইল্যান্ডব্যাংককবাত
ভিয়েতনামহ্যানয়দোং
কম্বোডিয়ানমপেনরিয়েল
লাওসভিয়েনতিয়েনকিপ
ব্রুনাইবন্দর সেরি বেগাওয়ানডলার
সিঙ্গাপুরসিঙ্গাপুর সিটিডলার
মালয়েশিয়াকুয়ালালামপুররিংগিট
ফিলিপাইনম্যানিলাপেসো
ইন্দোনেশিয়াজাকার্তারুপিয়াহ
পূর্ব তিমুরদিলিডলার
ইরানতেহরানরিয়াল
ইরাকবাগদাদদিনার
কুয়েতকুয়েত সিটিদিনার
সৌদি আরবরিয়াদরিয়াল
ওমানমাস্কটরিয়াল
কাতারদোহারিয়াল
বাহরাইনমানামাদিনার
সংযুক্ত আরব আমিরাতআবুধাবিদিনার
ইয়েমেনসানারিয়াল
সিরিয়াদামেস্কপাউন্ড
জর্ডানআম্মানদিনার
লেবাননবৈরুতপাউন্ড
ইসরাইলজেরুজালেমশেকেল
চীনবেইজিংইউয়ান
জাপানটোকিওইয়েন
উত্তর কোরিয়াপিয়ংইয়ংওয়ান
দক্ষিণ কোরিয়াসিউলওয়ান
তুর্কমেনিস্তানআশখাবাদমানাত
উজবেকিস্তানতাসখন্দসোম
কাজাখস্তানআস্তানাটেঙ্গে
জার্মানিবার্লিনইউরো
পোল্যান্ডওয়ারসজলটি
আলবেনিয়াতিরানালেক
বুলগেরিয়াসোফিয়ালেভ
সার্বিয়াবেলগ্রেডদিনার
মন্টিনিগ্রোপোডগোরিকোইউরো
বসনিয়াসারায়েভোদিনার
স্লোভাকিয়াব্লাটিস্লোভাইউরো
স্লোভেনিয়ালুবজানাইউরো
কসোভাপ্রিস্টিনাইউরো
অষ্ট্রিয়াভিয়েনাইউরো
আয়ারল্যান্ডডাবলিনইউরো
ইতালিরোমইউরো
ভ্যাটিক্যানভ্যাটিক্যান সিটিইউরো
গ্রীসএথেন্সইউরো
নেদারল্যান্ডআমস্টারডামইউরো
পর্তুগাললিসবনইউরো
ফিনল্যান্ডহেলসিংকিইউরো
ফ্রান্সপ্যারিসইউরো
বেলজিয়ামব্রাসেল্সইউরো
মাল্টাভ্যালটাইউরো
সাইপ্রাসনিকোশিয়াইউরো
স্পেনমাদ্রিদইউরো
লুক্সোমবার্গলুক্সেমবার্গইউরো
এস্তোনিয়াতাল্লিনইউরো
মোনাকোমোনাকোসিটিইউরো
লাটভিয়ারিগাইউরো
আইসল্যান্ডরিকজার্ভিকক্রোনা
ডেনমার্ককোপেনহেগেনক্রোনা
নরওয়েঅসলোক্রোনা
বৃটেনলন্ডনপাউন্ড স্টার্লিং
রাশিয়ামস্কোরুবল
সুইডেনস্টকহোমক্রোনা
তুরস্কআঙ্কারালিরা
মিশরকায়রোপাউন্ড
মরক্কোরাবাতদিরহাম
লিবিয়াক্রিপোলীদিনার
তিউনিসিয়াতিউনিসদিনার
সুদানখার্তুমপাউন্ড
আলজেরিয়াআলজিয়ার্সদিনার
নাইজেরিয়াআবুজানাইরো
কেনিয়ানাইরোবিশিলিং
সোমালিয়ামোগাদিসুশিলিং
মোজাম্বিকমাপুটোমেটিকাল
মাদাগাস্কারআলতানানরিডোফ্রাংক
মালিবামাকোফ্রাংক
মৌরিতানিয়ানোয়াকচটউজুইয়া
নামিবিয়াউইন্ডহুকডলার
সোয়াজিল্যান্ডমেবেনলিলানগিনি
তাঞ্জানিয়াদারুস সালামশিলিং
জিম্বাবুয়েহারারেডলার
কঙ্গোকিনসাসাজায়ার
উগান্ডাকাম্পালাশিলিং
মরিসাসপোর্ট লুইসরুপি
দক্ষিণ আফ্রিকাকেপটাউনর‍্যান্ড
ঘানাআক্রাসেডি
আইভরিকোস্টআবিদজানফ্রাংক
সেনেগালডাকারফ্রাংক
টোগোলোমফ্রাংক
সিয়েরালিয়ানফ্রি টাউনলিওন
ইথিওপিয়াআদ্দিস আবাবাবির
জিবুতিজিবুতিফ্রাংক
কানাডাঅটোয়াকানডিয়ান ডলার
যুক্তরাষ্ট্রওয়াশিংটন ডিসিডলার
মেক্সিকোমেক্সিকো সিটিপেসো
হন্ডুরাসতেগুসিগাপলাল্যামপিয়া
কোস্টারিকাস্যানজোসেকোলন
কিউবাহাভানাপেসো
ত্রিনিদাদ ও টোবাগোপোর্ট অবত্রিনিদাদ ও টোবাগো ডলার
বারবাডোজব্রিজটাউনডলার
জ্যামাইকাকিংস্টোনডলার
হাইতিপোর্ট অব প্রিন্সগুর্ডে
চিলিসান্টিয়াগোপেসো
ব্রাজিলব্রাসিলিয়াব্রাজিলিয়ান রিয়াল
উরুগুয়েমন্টিভিডিওপেসো
প্যারাগুয়েআসুনসিয়নগুয়রানি
পেরুলিমানিউ ভু সোল
গায়ানাজর্জ টাউনগায়ানা ডলার
কলম্বিয়াবোগোতাপেসো
ভেনিজুয়েলাকারাকাসবলিভার
আর্জেন্টিনাবুয়েন্স আর্য়াসপেসো
সুরিনামপ্যারামারিবোডলার
ইকুয়েডরকিটোমার্কিন ডলার
বলিভিয়ালাপাজবলিভিয়েনো
অস্ট্রেলিয়াক্যানবেরাঅস্ট্রেলিয়ান ডলার
নিউজিল্যান্ডওয়েলিংটনডলার
ফিজিসুভাডলার
উপরের ছক থেকে আমরা বিভিন্ন দেশের রাজধানী এবং মুদ্রার নাম জানা হলো।
আরো বিভিন্ন ধরনের তথ্য জানতে আমাদের সাইটে চোখ রাখুন।

এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার রুটিন ২০২০

২০২০ সালের এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার রুটিন প্রকাশিত হয়েছে।পরিক্ষার্থীকে বেশ কিছু নিয়ম কানুন মেনে পরীক্ষার হলে যেতে হবে।সেগুলো হলো:-
🚀নির্ধারিত সময়ের কমপক্ষে 30 মিনিট আগে পরীক্ষার হলে পৌঁছাতে হবে।
🚀মোবাইল ফোন সাথে নেওয়া যাবে না।
🚀রেজিস্ট্রেশন কার্ড এবং এডমিট কার্ড সাথে নিতে হবে।
🚀রেজিস্ট্রেশন কার্ড এবং এডমিট কার্ড ব্যতীত অন্য কোন অতিরিক্ত কাগজপত্র সাথে নেওয়া যাবে না।




একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির অনলাইন আবেদন কিভাবে করবেন

কয়েকদিন হলো এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।কারও রেজাল্ট অনেক ভালো হয়েছে আবার কারো কারো চাইতে একটু কম।তবে সবার মাঝে এখন নতুন একটা চিন্তা কাজ করছে তা হল  এখন  কে কোন কলেজে ভর্তি হবে সেই চিন্তা।
বর্তমানে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য কোথায় ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয় না।
এবং কলেজে গিয়েও ফরম কিনতে হয় না। এখন ঘরে বসেই আপনি আপনার ভর্তি ফরম পূরণ করতে পারেন।অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করবেন যেভাবে -

আপনি যদি নিজে অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করতে চান তাহলে প্রয়োজন হবে একটি টেলিটক সিম বা
শিওর ক্যাশ অথবা রকেট এর মাধ্যমে ফি জমা দিতে হবে। প্রতিটি  আবেদনের জন্য ফি লাগবে ১৫০ টাকা।
ফি জমা দিতে আপনার টেলিটক সিম থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখবেন,
CAD এরপর একটি স্পেস  দিন তারপরে WEB লিখবেন আবার স্পেস দিয়ে, আপনি যে বোর্ড থেকে পাস করেছেন সেই বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর এরপরে একটি স্পেস  দিয়ে আপনার পরীক্ষার রোল নাম্বার টি দিন এবং সবশেষে একটি স্পেস দিয়ে আপনার পরীক্ষার বর্ষ দিন।এরপরে মেসেজটি 16222 নম্বরে পাঠিয়ে দিন।
CAD <space> WEB <space> Board <space> Roll <space> Year 
Sent to 16222
এস এম এস টি পাঠানোর পরে আপনার ফোনে একটি এসএমএস আসবে।এস এম এস টি তে উল্লেখ থাকবে আবেদনকারীর নাম এবং ফি বাবদ দেড়শত টাকা কেটে নেওয়া হবে এবং একটি পিনকোড প্রদান করা হবে।এবং এই অর্থ প্রদান করার এই ব্যাপারে আপনার সম্মতি আছে কিনা।
 আপনি যদি এ ব্যাপারে সম্মত থাকেন তাহলে মেসেজ অপশনে গিয়ে-
 CAD স্পেস YES স্পেস পিনকোড(যেটি প্রদান করা হয়েছে) স্পেস একটি কন্টাক্ট নাম্বার(মোবাইল নম্বর) দিতে হবে।এরপরে মেসেজটি 16222 নম্বরে পাঠিয়ে দিন।

গ্রামীনফোনের মাধ্যমে ফি প্রদানের প্রক্রিয়া -
বিকাশের মাধ্যমে ফি প্রদানের প্রক্রিয়া -

শিওরক্যাশ এর মাধ্যমে প্রদান প্রক্রিয়া -

সঠিকভাবে ফি প্রদান সম্পন্ন হলে প্রার্থীর মোবাইলে একটি নিশ্চিতকরণ এসএমএস যাবে।এবং সাথে একটি ট্রানজেকশন আইডি থাকবে।
ফি প্রদান সম্পন্ন হয়েছে এটি নিশ্চিত হওয়ার পরে নিচের ঠিকানায় যেতে হবে -
ফরম পূরণ করতে এখানে ক্লিক করুন

apply now-এ ক্লিক করুন,

[সম্পূর্ণ নির্দেশিকা পেতে এখানে ক্লিক করুন।
(বিঃদ্রঃআরো বিস্তারিত জানতে এই নির্দেশিকা টি অবশ্যই পড়ে নিবেন )]

এর পরে এরকম একটি ফর্ম দেখতে পাবেন সেখানে আপনার এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার পাশের রোল নাম্বার বোর্ডে পাসের সন এবং রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিয়ে সঠিকভাবে পূরন করতে হবে।
এবং পরবর্তী প্রক্রিয়া শেষ হলে আবেদনকারী একটি ফর্ম পাবে সেটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।
একজন প্রার্থী সর্বনিম্ন পাঁচটি এবং সর্বোচ্চ দশটি কলেজে আবেদন করতে পারবে এবং সে ক্ষেত্রে চার্জ(১৫০ টাকা) একই থাকবে কোন রুপ অতিরিক্ত চার্জ প্রদান করতে হবে না।
আবেদন করতে মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করতে হবে -
CAD স্পেস- EIIN(যে কলেজে বা মাদ্রাসায় ভর্তি ইচ্ছুক) স্পেস-যে গ্রুপে ভর্তি হতে ইচ্ছুক তার প্রথম দুই অক্ষর স্পেস-এসএসসি পরীক্ষায় যে বোর্ড থেকে পাস করেছে সেই বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর স্পেস-এসএসসি পাসের রোল নাম্বার, পাশের সাল, রেজিস্ট্রেশন নাম্বার,শিফট এর নাম ভার্সন কোঠার নাম যদি থাকে।
এরপরে মেসেজটি পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে।
বাংলাদেশের সকল কলেজের তথ্য পেতে এখানে ক্লিক করুন।
মোট তিন ধাপে ভর্তির আবেদন কার্যক্রম চলবে।
ধাপ ১-প্রথম ধাপে ২৩ মে পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।প্রথম ধাপের ফলাফল প্রকাশ করা হবে ১০ জুন।
ধাপ ২- দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করা যাবে ১৯-২০ জুন।এবং ২১ জুন ফল প্রকাশ হবে।
ধাপ ৩- তৃতীয় ধাপে আবেদন করতে হবে ২৪ জুন তারিখে। এবং ফলাফল প্রকাশ পাবে ২৫ জুন।এবং ২৭-৩০ তারিখের মধ্যে কলেজে ভর্তি হতে হবে।
পহেলা জুলাই থেকে ক্লাস শুরু হবে।


আমাদের সাইটটি সম্পর্কে কিছু কথা


সৃষ্টিকর্তার পরম করুণায় আমাদের  ব্লগের শুভ যাত্রা শুরু হলো। আমাদের ব্লগটি সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আপনাদের সকলের সহযোগিতা এবং শুভকামনা আশা করছি।  এই সাইটটি তৈরি করা হয়েছে মূলত  বাংলা ভাষার উপর ভিত্তি করে। এখানে বাংলা ভাষায় বিভিন্ন ধরনের পোস্ট করা হবে। যার থেকে আপনারা বিভিন্ন ধরনের জ্ঞান আহরণ করতে পারবেন। এবং বিভিন্ন বিষয়ে জানতে পারবেন।  আমাদের  ব্লগটি মূলত বাংলা ভাষায় বিভিন্ন ধরনের জ্ঞান মূলক তথ্য প্রদান করা হবে। আমাদের সাইটটিতে মূলত যে সব ধরনের পোস্ট করা হবে তা হল- বিভিন্ন শিক্ষনীয় বিষয়, সাধারণ জ্ঞান মূলক, স্বাস্থ্য সম্পর্কিত, আমাদের দৈনন্দিন বিভিন্ন বিষয়ে, বিভিন্ন জনসচেতনতা মূলক, সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ের উপর আলোচনা ছাড়াও আইটি বিষয়ক বিভিন্ন টিউটোরিয়াল এবং টিপস,বর্তমানে  বহুল জনপ্রিয় একটি বিষয় হচ্ছে অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করা। আমরা আপনাদের সামনে সামনে তুলে ধরবো কিভাবে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় এবং এর সঠিক উপায় সম্পর্কে। যেখান থেকে আপনারা সঠিক পথনির্দেশনা পাবেন এবং কিছু সত্যিকারে অর্থ উপার্জনের উপায় দেখিয়ে দেওয়া হবে।
আপনাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা বা কোন বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকলে আমাদের কমেন্ট সেকশনে কমেন্ট করতে পারেন। আমাদের টিম আপনাদের সমস্যা সমাধানের জন্য পোস্ট আকারে বিবৃতি প্রদান করবে। যার থাকে আপনারা আপনাদের সমস্যার সমাধান করতে পারবেন।
বিভিন্ন সমস্যার সমাধান এবং প্রশ্ন সম্পর্কিত বিভিন্ন সাইট রয়েছে কিন্তু সেগুলো ব্যবহার করা একটু কঠিন। কারণ তাদের কাছে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করতে বা কিছু জানতে চাইলে তাদের সাইটে প্রথমে সাইন আপ করতে হয় এরপরে তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয় কিন্তু আমাদের এখানে বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাওয়ার জন্য উন্মুক্ত একটি উপায় রাখা হয়েছে যার মাধ্যমে আপনি কোন প্রকার সাইন আপ এর ঝামেলা ছাড়াই আমাদের কাছে বিভিন্ন কিছু জানতে চাইতে পারেন।
আর এসকল বিষয়ে জানতে হলে আমাদের সাথে থাকুন এবং আমাদের ব্লগটি নিয়মিত ভিজিট করুন। এর ফলে আপনি বিভিন্ন বিষয়ে জানতে পারবেন এবং অন্যকে জানাতে পারবেন।
ধন্যবাদ লেখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য।