হুয়াওয়ে বাজারে আনল হারমোনি অপারেটিং সিস্টেম -huawei lunch harmony os


সম্প্রতি আমার বিভিন্ন গণমাধ্যমের  মাধ্যমে জানতে পেরেছি গুগল তার সেবা বন্ধ করে দিয়েছে হুয়াওয়ের  মোবাইল ফোনের উপর। হুয়াওয়ে তার মোবাইল ফোনে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করতে পারবেনা বলে ঘোষণা দিয়েছিল। এবং বন্ধ করে দেয়া হয়ে ছিল  হুয়াওয়ের স্মার্টফোনে অ্যান্ড্রয়েড আপডেট। এবং নতুন হুয়াওয়ে স্মার্টফোনে  অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করতে পারবেনা বলে জানিয়েছিল গুগল কর্তৃপক্ষ।

Harmony operating system 
 এরই ধারাবাহিকতায় চীনা স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানি হুয়াওয়ে নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করার উপর গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল। তবে এ বিষয়ে সঠিক কোন তথ্য কারো কাছে ছিল না। শুধুমাত্র বিভিন্ন গণমাধ্যমে গুঞ্জন শোনা যেত এর বিষয়ে। তবে Huawei নির্বাহী কর্মকর্তা রিচার্ড ইউ ৯ আগস্ট  এক প্রেস কনফারেন্সে তাদের তৈরি নতুন অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কে মুখ খোলেন।
তাদের এই নতুন অপারেটিং সিস্টেমের নাম দেওয়া হয় 'হারমোনি আপারেটিং সিস্টেম'
। তবে তারা এটি এখনি  স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করতে চান না।
Huawei announce new operating system 
 তারা জানায় গুগোল যখন তাদের তৈরি মোবাইল ফোনের উপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করায়। ঠিক তখনই তারা মোবাইল ফোনে তাদের তৈরি হারমোনি অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করতে শুরু করবে। তারা আরো জানায় তাদের এই অপারেটিং সিস্টেম গুগোলের  অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের চাইতেও অনেক উন্নত প্রযুক্তি দ্বারা তৈরি করা হয়েছে। তাদের এই অপারেটিং সিস্টেমটি তৈরি করা হয়েছে  মাইক্রো কার্নেলের উপর ভিত্তি করে। যেটি অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের চেয়েও অনেক দ্রুত এবং নিরাপদ হবে।

release harmony operating system 
 তবে এখনো তারা মোবাইল ফোনে তাদের এই অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যবহার না করে প্রথমে তারা  ঘড়ি,স্মার্ট ডিসপ্লে, হেডফোন এবং স্পিকারের মত  আইওটি পণ্যে ব্যবহার করবে।

  হুয়াওয়ে কোম্পানির তৈরি এই হারমনি অপারেটিং সিস্টেম টি রাখা হয়েছে ওপেনসোর্স। এবং ভবিষ্যত প্রযুক্তির কথা চিন্তা করেই এটি তৈরি করা হয়েছে মাইক্রো কার্নেলের উপর ভিত্তি করে। তারা আরো জানায় গুগলের পরবর্তী অপারেটিং সিস্টেম ফুকশিয়ার  সাথে টক্কর দিতে প্রস্তুত এই অপারেটিং সিস্টেম। এতে রুট অ্যাক্সেস না থাকায় অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেম এর চাইতেও অনেক নিরাপদ।