আইপিটিএসপি লাইসেন্স প্রদানে আপত্তি জানাচ্ছে অপারেটর কোম্পানি

বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ইন্টারনেট ভিত্তিক ভয়েস কল সার্ভিস।যেখানে ইমু,হোয়াটস অ্যাপ,ভাইবার ইত্যাদি অ্যাপস দ্বারা কথা বলতে গেলে উভয় ব্যক্তির  একই অ্যাপ থাকা জরুরি।এবং দুজনেরই মোবাইল ডাটা,বা নেট কানেকশন থাকতে হবে এছাড়া কথা বলা অসম্ভব।বর্তমানে আই পি কল সিস্টেম চালু হওয়ার কারনে গ্রাহকগণ খুব অল্প খরচে যে কোন নাম্বারে কথা বলতে পারছে।এর জন্য বিভিন্ন অ্যাপস স্টোরে রয়েছে হাজার হাজার অ্যাপ।তারা খুবই অল্প পরিমাণ টাকার বিনিময় কথা বলার সুযোগ করে দিচ্ছে গ্রাহককে।এটিকে ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিফোন সার্ভিস প্রোভাইডার্স (IPTSP) বলা হয়।এটি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ইন্টারনেট সংযোগ রাখতে হবে।কারণ এটি ইন্টারনেট ভিত্তিক কলিং সিস্টেম।

অপরদিকে সম্প্রতি আমাদের দেশের কল রেট বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে আমাদের দেশের লোকজন এই সেবা গ্রহণে খুবই উৎসুক হয়ে পড়ছে।
এর প্রধান কারণ হচ্ছে, লাগামহীন কল রেট।এক কথায় বলতে গেলে  যা গ্রাহকের সাধ্যের বাইরে চলে যাচ্ছে।আর এ কারণেই গ্রাহকগণ বিকল্প পথ খুঁজে নিচ্ছে।
বাংলাদেশের টেলিকম কোম্পানিগুলো ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিফোন সার্ভিস প্রোভাইডার বা আইপিটিএসপি যারা মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে ভয়েস কল সার্ভিস প্রদান করে থাকে তাদের অনুমতি বা লাইসেন্স প্রদানে বাধা সৃষ্টি করছে এবং জোর আপত্তি জানাচ্ছে বিটিআরসি কে।এবং এই আপত্তি জানানো হচ্ছে মোবাইল অপারেটর সংগঠন অ্যামটবের মাধ্যমে।

কারণ তারা মনে করে ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিফোন সার্ভিস প্রোভাইডার (IPTSP) এর মাধ্যমে ভয়েস কল সার্ভিস প্রদান করা শুরু হলে  অপারেটর কোম্পানিগুলোর আয়ের উপর বিরাট প্রভাব ফেলবে।আর এটাই হচ্ছে তাদের বিরোধিতার প্রধান কারণ।
অপরদিকে IPTSP কোম্পানিগুলো বলছে বিদেশি কোম্পানি যেমন ইমু, হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবার ইত্যাদি।তারা ইন্টারনেট ভিত্তিক  ভয়েস কল সেবা প্রদান করে তাদের কিছু করতে পারছে না অপারেটর কোম্পানিগুলো।তারা কোটি কোটি টাকা আয় করে নিয়ে যাচ্ছে আর যত আপত্তি শুধু দেশীয় উদ্যোক্তাদের জন্য।
তবে কমিশন ও আপত্তি আমলে নিয়ে অপারেটর কোম্পানি এবং IPTSP কোম্পানির প্রতিনিধিদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে ব্যাপারটির একটি সমাধান করতে চাচ্ছে।
কিন্তু IPTSP এর প্রতিনিধিরা বিষয়টি মানতে নারাজ।তারা বলেন এটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন প্রস্তাব।এর ফলে একদিকে তাদের ভয়েস কলের ওপর প্রভাব ফেললেও অন্যদিকে  তাদের ডাটা প্যাক বিক্রি বৃদ্ধি পাবে।এবং এর ফলে তাদের ব্যবসা এর কোন প্রভাব পড়বে না।
এবং তারা বলে,শুধুমাত্র ব্যবসায় স্বার্থের জন্য দেশের আধুনিক একটি সেবা চালু হবে না এটা তো হতে পারে না।
বর্তমানে ব্রিলিয়ান্ট নামক এপ্স প্রচুর জনপ্রিয়তা পেয়েছে।এর গ্রাহক ও দিন দিন বেড়ে চলেছে। কারন কোম্পানিটির সেবার মান আপরদিকে কলরেট গ্রাহকের মন জয় করে নিয়েছে। কোম্পানিটি লাইসেন্স পায় ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসের দিক।
এবং একই বছরের ডিসেম্বরে লাইসেন্স পায় আরো চারটি কোম্পানি এগুলো হলো আম্বার আইটি লিমিটেড,বিডিকম অনলাইন লিমিটেড,মেট্রোনেট বাংলাদেশ এবং লিংক থ্রি টেকনোলজি লিমিটেড।
এ বছর ফেব্রুয়ারি তে লাইসেন্স পায়  আইসিসি কমিউনিকেশন্স লিমিটেড।

বর্তমানে বাংলাদেশে ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিফোন  সার্ভিস প্রোভাইডার্স (IPTSP) লাইসেন্স রয়েছে ৪১ টি।
এ প্রযুক্তিটি সম্পূর্ণরূপে চালু হলে সাধারণ মানুষ এর ভালো সুফল পাবে বলেই আমি আশা করি।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির অনলাইন আবেদন কিভাবে করবেন

কয়েকদিন হলো এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।কারও রেজাল্ট অনেক ভালো হয়েছে আবার কারো কারো চাইতে একটু কম।তবে সবার মাঝে এখন নতুন একটা চিন্তা কাজ করছে তা হল  এখন  কে কোন কলেজে ভর্তি হবে সেই চিন্তা।
বর্তমানে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য কোথায় ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয় না।
এবং কলেজে গিয়েও ফরম কিনতে হয় না। এখন ঘরে বসেই আপনি আপনার ভর্তি ফরম পূরণ করতে পারেন।অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করবেন যেভাবে -

আপনি যদি নিজে অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করতে চান তাহলে প্রয়োজন হবে একটি টেলিটক সিম বা
শিওর ক্যাশ অথবা রকেট এর মাধ্যমে ফি জমা দিতে হবে। প্রতিটি  আবেদনের জন্য ফি লাগবে ১৫০ টাকা।
ফি জমা দিতে আপনার টেলিটক সিম থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখবেন,
CAD এরপর একটি স্পেস  দিন তারপরে WEB লিখবেন আবার স্পেস দিয়ে, আপনি যে বোর্ড থেকে পাস করেছেন সেই বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর এরপরে একটি স্পেস  দিয়ে আপনার পরীক্ষার রোল নাম্বার টি দিন এবং সবশেষে একটি স্পেস দিয়ে আপনার পরীক্ষার বর্ষ দিন।এরপরে মেসেজটি 16222 নম্বরে পাঠিয়ে দিন।
CAD <space> WEB <space> Board <space> Roll <space> Year 
Sent to 16222
এস এম এস টি পাঠানোর পরে আপনার ফোনে একটি এসএমএস আসবে।এস এম এস টি তে উল্লেখ থাকবে আবেদনকারীর নাম এবং ফি বাবদ দেড়শত টাকা কেটে নেওয়া হবে এবং একটি পিনকোড প্রদান করা হবে।এবং এই অর্থ প্রদান করার এই ব্যাপারে আপনার সম্মতি আছে কিনা।
 আপনি যদি এ ব্যাপারে সম্মত থাকেন তাহলে মেসেজ অপশনে গিয়ে-
 CAD স্পেস YES স্পেস পিনকোড(যেটি প্রদান করা হয়েছে) স্পেস একটি কন্টাক্ট নাম্বার(মোবাইল নম্বর) দিতে হবে।এরপরে মেসেজটি 16222 নম্বরে পাঠিয়ে দিন।

গ্রামীনফোনের মাধ্যমে ফি প্রদানের প্রক্রিয়া -
বিকাশের মাধ্যমে ফি প্রদানের প্রক্রিয়া -

শিওরক্যাশ এর মাধ্যমে প্রদান প্রক্রিয়া -

সঠিকভাবে ফি প্রদান সম্পন্ন হলে প্রার্থীর মোবাইলে একটি নিশ্চিতকরণ এসএমএস যাবে।এবং সাথে একটি ট্রানজেকশন আইডি থাকবে।
ফি প্রদান সম্পন্ন হয়েছে এটি নিশ্চিত হওয়ার পরে নিচের ঠিকানায় যেতে হবে -
ফরম পূরণ করতে এখানে ক্লিক করুন

apply now-এ ক্লিক করুন,

[সম্পূর্ণ নির্দেশিকা পেতে এখানে ক্লিক করুন।
(বিঃদ্রঃআরো বিস্তারিত জানতে এই নির্দেশিকা টি অবশ্যই পড়ে নিবেন )]

এর পরে এরকম একটি ফর্ম দেখতে পাবেন সেখানে আপনার এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার পাশের রোল নাম্বার বোর্ডে পাসের সন এবং রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিয়ে সঠিকভাবে পূরন করতে হবে।
এবং পরবর্তী প্রক্রিয়া শেষ হলে আবেদনকারী একটি ফর্ম পাবে সেটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।
একজন প্রার্থী সর্বনিম্ন পাঁচটি এবং সর্বোচ্চ দশটি কলেজে আবেদন করতে পারবে এবং সে ক্ষেত্রে চার্জ(১৫০ টাকা) একই থাকবে কোন রুপ অতিরিক্ত চার্জ প্রদান করতে হবে না।
আবেদন করতে মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করতে হবে -
CAD স্পেস- EIIN(যে কলেজে বা মাদ্রাসায় ভর্তি ইচ্ছুক) স্পেস-যে গ্রুপে ভর্তি হতে ইচ্ছুক তার প্রথম দুই অক্ষর স্পেস-এসএসসি পরীক্ষায় যে বোর্ড থেকে পাস করেছে সেই বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর স্পেস-এসএসসি পাসের রোল নাম্বার, পাশের সাল, রেজিস্ট্রেশন নাম্বার,শিফট এর নাম ভার্সন কোঠার নাম যদি থাকে।
এরপরে মেসেজটি পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে।
বাংলাদেশের সকল কলেজের তথ্য পেতে এখানে ক্লিক করুন।
মোট তিন ধাপে ভর্তির আবেদন কার্যক্রম চলবে।
ধাপ ১-প্রথম ধাপে ২৩ মে পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।প্রথম ধাপের ফলাফল প্রকাশ করা হবে ১০ জুন।
ধাপ ২- দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করা যাবে ১৯-২০ জুন।এবং ২১ জুন ফল প্রকাশ হবে।
ধাপ ৩- তৃতীয় ধাপে আবেদন করতে হবে ২৪ জুন তারিখে। এবং ফলাফল প্রকাশ পাবে ২৫ জুন।এবং ২৭-৩০ তারিখের মধ্যে কলেজে ভর্তি হতে হবে।
পহেলা জুলাই থেকে ক্লাস শুরু হবে।


কিভাবে একটি আপহোল্ড একাউন্ট খুলবেন এবং ভেরিফাই করবেন

এর আগে আমি আপনাদের একটি ইনকাম অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন সম্পর্কিত একটি পোস্ট করেছিলাম।যে একটি ব্রাউজার ব্যবহার করে কিভাবে মাসে ২০০০-৩০০০ হাজার টাকা কোন কাজ না করেই ইনকাম করবেন।তো সেটার থেকে পেমেন্ট পাওয়ার জন্য দরকার একটি আপ হোল্ড অ্যাকাউন্ট তৈরি করা এবং সেটা ভেরিফাই করার।বিশেষত আজকের পোস্টটি সেকারণেই করা হয়েছে।কারণ আপনি একটি অাপ হোল্ড একাউন্ট ভেরিফাই করা ছাড়া কোনভাবেই এর থেকে পেমেন্ট পাবেন না।

তবে আপহোল্ড একাউন্ট ভেরিফাই করা খুবই সহজ। তাই ঘাবড়াবার কোন কারণ নেই।
Brave ব্রাউজার এ একাউন্ট করতে এই পোস্টটি ফলো করুন
আপহোল্ড একাউন্ট ভেরিফাই করতে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা ন্যাশনাল আইডি কার্ড লাগবে। আপনার নিজের যদি এরকম কোন ডকুমেন্ট না থাকে তাহলে আপনি পরিবারের অন্য কারো আইডি কার্ড বা ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে করতে পারেন।
প্রথমে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে এখানে প্রবেশ করুন।
উপরোক্ত লিংকে প্রবেশ করলে আপনার সামনে এরকম একটি পেজ আসবে।
⭕প্রথম ঘরে আপনার ই-মেইল এড্রেসটি দিন।
⭕দ্বিতীয় ঘরে একটি পাসওয়ার্ড দিন। পাসওয়ার্ডটি অবশ্যই একটু কঠিন ভাবে দিবেন যেমন বড় হাতের, ছোট হাতের এবং সিম্বল ও নম্বরের মিশ্রণে তৈরি করবেন (উদাহরণস্বরূপ Aaaa@1223)।
⭕পরবর্তী করে দেখতে পারেন লেখা আছে ★an individual  ★ an business 
আপনি an individual সিলেক্ট করে দিন।
⭕এরপরে বলতে হয় দেখতে পাবেন আপনার দেশ সিলেক্ট করতে বলেছে আপনি যে দেশের নাগরিক সেই দেশ সিলেক্ট করে দিন।
⭕এরপরে এগ্রি টার্মস এন্ড কন্ডিশন লেখার পাশে টিক চিহ্ন দিন। এবং সাইন আপ বাটনে ক্লিক করুন। আপনার ইমেইলে একটি লিংক চলে যাবে।যেটাতে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনার মেইলটি কনফার্ম করুন।
এর পরে-
আপনার তথ্যগুলো যুক্ত করুন।অবশ্যই ভেরিফাইয়ের জন্য যে আইডি কার্ড ব্যবহার করবেন। সেই আইডি কার্ড অনুযায়ী তথ্য দিন।সমস্ত তথ্য সেভ করা হয়ে গেলে পরে আপনার সামনে একটি ভেরিফিকেশনের একটি অ্যালার্ট দেখাবে এরপরে। সেটিতে ক্লিক করে আপনি আইডি কার্ড সাবমিট করতে চান নাকি ড্রাইভিং লাইসেন্স আপলোড করতে চান তা সিলেক্ট করুন। এর পরের আইডি কার্ডের দুই পিঠের দুইটি ছবি এবং আইডি কার্ড এর মালিকের একটি ছবি লাগবে।এগুলো দেওয়ার সব দেখিয়ে দেয়া হয়েছে আপনি সেই অনুযায়ী সেট করে দেন। তাহলেই দুই এক দিনের ভেতর আপনার একাউন্ট ভেরিফাই হয়ে যাবে।ছবি এবং আইডিকার্ড বা ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফটো গুলো ক্লিয়ার করে তোলার চেষ্টা করবেন। তাহলে খুব দ্রুত ভেরিফাই হবে। 
এরপরে আপনি আপহোল্ড একাউন্ট টি আপনার brave  একাউন্টে কানেক্ট করতে প্রথমে আপনার ব্রেব একাউন্ট লগইন করুন। এবং কানেক্ট অ্যাপ হোল্ড এই অপশনে গিয়ে আপনার দেব অ্যাকাউন্টটি লগ ইন করে অথরাইজড করে নিন। অথরাইজড করা হয়ে গেলে কিছুক্ষনের ভিতর আপনার আসল একাউন্ট কানেক্ট হয়ে যাবে।
এর পরে আপনি দেব একাউন্ট এর ভিতরে রেফারেল লিঙ্ক পাবেন সেটি দিয়ে আপনি যতজন জয়েন করাতে পারবেন প্রত্যেক জনের থেকে ৩০ BAT তো কেন করে পাবেন যার বর্তমান মূল্য 12 ডলারের উপরে। এবং প্রতি মাসের ৮ তারিখে আপনার আপ হোল্ড একাউন্টে ট্রান্সফার করে দেয়া হবে।তবে রেফারেল বোনাস পেতে হলে অবশ্যই আপনার রেফারেল এ যে জয়েন করবে তাকে ৩০ দিন এই ব্রাউজারটি ব্যবহার করতে হবে।


কোন কাজ না করে মাসে আয় করুন ২০০০-৩০০০ টাকা

সুপ্রিয় পাঠক আজ আমি আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি একটি দুর্দান্ত ইনকামের পথ। এটি যে কোন মানুষ করতে পারবে এতে আপনাকে কোন প্রকার কাজ করা লাগবে না। এর থেকে কোন কাজ না করেই মাসে ২০০০-৩০০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনি যদি সামান্য কাজ করেন তাহলে আনলিমিটেড ইনকাম করতে পারবেন। চলুন তাহলে কথা না বাড়িয়ে কাজের কথায় আসা যাক,
আমরা সবাই বর্তমানে এন্ড্রয়েড ফোন অথবা পিসি ব্যবহার করে থাকি। আর তাতে আমরা ইন্টারনেট ব্রাউজ  করে থাকি। বর্তমানে আপনিও এই মুহূর্তে ইন্টারনেট ব্রাউজিং করছেন। কারণ আপনি ইন্টারনেট ব্রাউজিং না করলে আমার এই পোস্টটি পড়তে পারতেন না।
আচ্ছা ভাবুন তো আপনি যে ব্রাউজিং করছেন এর জন্য কি আপনার কোন অর্থোপার্জন হচ্ছে?
এ প্রশ্নের উত্তরে আপনি একটাই উত্তর দেবেন, না হচ্ছে না।
তাহলে ভাবুন তো এই ইন্টারনেট ব্রাউজিং যদি হয় আপনার একটি আয় এর উৎস তাহলে কেমন হয়! হ্যাঁ আজ আমি আপনাদের মাঝে এমন একটি অনলাইন ইনকাম টিপস শেয়ার করবো যার মাধ্যমে আপনি শুধুমাত্র একটি ব্রাউজার ব্যবহার করে মাসে 2-3 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এবং এর পাশাপাশি আপনি যদি একটু কাজ করেন তাহলে এর থেকে আনলিমিটেড ইনকাম করা সম্ভব। এর পাশাপাশি ব্রাউজারটির অনেক সুযোগ সুবিধাও রয়েছে। যেগুলো হলো,
 ব্রাউজার দিয়ে আপনি সম্পূর্ণ বিজ্ঞাপন মুক্তভাবে নেট চালাতে পারবেন।আপনি যে কোন সাইটে প্রবেশ করুন না কেন কোন প্রকার বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হবে না।তবে এটি ছাড়া আরও অনেক ব্রাউজার আছে যেগুলো বিজ্ঞাপন ব্লক করে  রাখে কিন্তু সেগুলো ad-blocker এত শক্তিশালী নয়। এই ব্রাউজারটির ad-blocker ব্যবহার করার ফলে আপনি খুব দ্রুত এবং সুন্দর ব্রাউজিং এক্সপেরিয়েন্স পাবেন। এর পরে রয়েছে এই ব্রাউজারটি আপনার ব্যক্তিগত তথ্য সম্পূর্ণ নিরাপদ রাখবে এবং অনেক সাইট রয়েছে যেগুলো বিভিন্ন ধরনের ট্র্যাকার ব্যবহার করে থাকে এই সাইটটি সেগুলো ব্লক করে রাখে। যার ফলে কেউ আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ট্র্যাক করতে পারবে না। এবং ব্রাউজারটি ইন্টারফেস অনেক সুন্দর এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি। এই সকল সুবিধার পাশাপাশি আপনি পাচ্ছেন ইনকামের সুবিধা এর থেকে বড় সুযোগ আর কি হতে পারে?এই পোস্টটিতে  আমি আপনাদের কয়েকটি পার্ট করে সম্পূর্ণ ভাবে বুঝিয়ে দেব। কারণ প্রায় সকল সাইটে অনলাইন আর্নিং বিষয়ক টিপস গুলো এমন করে দেয় যাতে আপনি তাদের কথায় প্রলুব্ধ হয়ে জয়েন করবেন এতে তারা রেফারেল বোনাস পাবে কিন্তু আপনি কোন প্রকার অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না।  তারা এগুলো  করে থাকে শুধু মাত্র ব্যক্তিগত স্বার্থে। এবং তাদের ইনকামের জন্য। তবে আমি আপনাদের সম্পূর্ণ গাইডলাইন দিব। তাহলে চলুন কাজ শুরু করা যাক,
প্রথমে নিচে দেওয়া ছবিতে ক্লিক করে লিঙ্কে প্রবেশ করুন-


লিংক-এখানে ক্লিক করুন
এই লিংকে প্রবেশ করলে আপনার সামনে এরকম একটা ইন্টারফেস চলে আসবে, নিচের ডাউনলোড অপশন দেখতে পাবেন সেখান থেকে ব্রাউজারটি ডাউনলোড করুন এরপরে,
তিন ডটে ক্লিক করার পরে-
এখান থেকে কনটেন্ট ক্রিয়েটর সিলেক্ট করুন। এরপরে আপনার  সামনে ঠিক এরকম একটি ইমেল দ্বারা সাইন আপ করার পর আমার  ফর্ম আসবে। ওখানে আপনার ইমেইল টি দিয়ে সাইন আপ বাটনে ক্লিক করুন।

ক্লিক করার পরে আপনার ইমেইলে একটি মেইল চলে আসবে। মেইলটিতে একটি লিংক থাকবে লিংকে ক্লিক করার মাধ্যমে মেইলটি কনফার্ম করুন। ইমেইল কনফার্ম হলে। আপনার অ্যাকাউন্ট লগিন হবে।
 সেখান থেকে আপনাকে ইউটিউব চ্যানেল বা ওয়েবসাইটে এড করতে হবে।
আপনি ওয়েবসাইট থাকলেও সেটি এড না করে ইউটিউব চ্যানেল এড করুন। এর প্রধান কারণ হচ্ছে ইউটিউব চ্যানেল এড করা সহজ।
একদম নিচে দেখবে এড ওয়েবসাইট অর চ্যালেন লেখা এটি দেখে চ্যানেলটি অ্যাড করতে হবে।অ্যাড  চ্যানেল অপশনে ক্লিক   করলে আপনার সামনে একটি অপশন আসবে যেখানে দেখাবে আপনি ওয়েব সাইট এড করতে চান নাকি ইউটিউব চ্যানেল। আপনি ইউটিউব চ্যানেল সিলেক্ট করুন।


ইউটিউব চ্যানেল সিলেক্ট   করতে আপনার জিমেইল দিন এবং যে ইমেইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল খোলা সেটি ব্রাউজারে লগইন করুন। এছাড়া পেমেন্ট পেতে আপহোল্ড একাউন্ট এড করা লাগে।
 পোস্ট বড় হয়ে যাওয়ার কারণে পরবর্তী পোস্টে আমি আপহোল্ড একটি একাউন্ট তৈরি করা শিখিয়ে দেবো এবং কিভাবে কানেক্ট করবেন তা দেখিয়ে দেবো।  আপনি প্রতিটি রেফারে পাবেন 30 টোকেন যার মূল্য 12 ডলারের বেশি। আর যারা রেফার করতে পারেন না তাদের ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। যদিও রেফার করতে পারলে আপনি আনলিমিটেড ইনকাম করতে পারবেন। রেফার   ইনকাম করার পদ্ধতি পরবর্তী পোস্টে দেখিয়ে দেয়া হবে। এই অ্যাপটি থেকে আপনি আজীবন ইনকাম করতে পারবেন তাই বিস্তারিত জানতে আমাদের সাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন। কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।