আমাদের মনে অনেকেরই মনে প্রশ্ন রয়েছে গুগল এডসেন্স কি।গুগল এডসেন্স একাউন্ট নিয়ে অনেকের মনে হাজারো প্রশ্ন ঘুরপাক খায়!কিভাবে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় করা সম্ভব এটা জানার জন্য হাজারো উপায় অবলম্বন করে থাকে।শুধু মাত্র এটা জানার জন্য কিভাবে গুগল এডসেন্স শিখবো।আজ আমি আপনাদের এই সকল হাজারো কৌতুহলের সমাধান দিতে চলেছি!
এবং আজকের গুগল এডসেন্স টিউটোরিয়াল আপনাদের সকল কৌতুহল দুর করার জন্য।

adsense থেকে আয় করার উপায় হলো বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা।আর এর জন্য আপনার প্রয়োজন একটি ওয়েবসাইটের বা ইউটিউব চ্যানেলের।গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার উপায় হলো আপনি একটি ওয়েব সাইট খুলবেন এবং সেখানে কন্টেন্ট যুক্ত করবেন।SEO করবেন এবং সাইটের ভিজিটর বাড়াবেন।এর পরে এডসেন্স একাউন্ট এর জন্য আবেদন করার পালা।তবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই এডসেন্সের সকল শর্ত পুরন করতে হবে।তাহলে  Google Adsence আপনার সাইটের জন্য এডসেন্স এপ্রুভ করে দিবে। এবং আপনার সাইটে বিজ্ঞাপন (ADS) দেখানো শুরু করবে।এবং কমপক্ষে এডসেন্স একাউন্টের ১০০ ডলার আয় করতে পারলেই আপনি পেমেন্ট পাবেন।

গুগল এডসেন্স পেমেন্ট দিয়ে থাকে চেক,ব্যাংক এবং মাষ্টার কার্ড(Muster Card) এর মাধ্যমে।এডসেন্স থেকে টাকা তোলার পদ্ধতি হলো এগুলো।এর জন্য শুধু আপনাকে পেমেন্ট মেথড ভেরিফাই করতে হবে।

ইউটিউব এডসেন্স খোলার নিয়ম নিয়মও প্রায় একই।এবং ইউটিউব চ্যানেলে এডসেন্স থেকে আয় করার পদ্ধতিও একই।তবে আপনাকে কিছু শর্ত পুরন করতে হবে যেমন,১০০০ সাবস্ক্রাইবার,৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম।এগুলো পূর্ন হলেই আপনি ইউটিউব এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।এবং এপ্রুভ হলেই আয় করতে পারবেন।এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম খুবই সহজ।

তবে  আমরা একটা কমন প্রশ্নের সম্মুখিন হই সকল সময়ই।তাহলো,ইউটিউব কত ভিউ হলে কত টাকা দেয়?এই প্রশ্নের উত্তর হলো ইউটিউব কখনো ভিডিওর ভিউর উপর নির্ভর করে টাকা দেয় না।শুধু মাত্র কত বিজ্ঞাপন (Ads) ভিউ হলো এবং কত ক্লিক হলো তার উপর পেমেন্ট করে থাকে।এবং আয়ের পরিমান নির্ভর করে আপনার এডসেন্সের CPC(Cost Per Click) এর উপর CPC যত বেশি আয় তত বেশি।

গুগল এডসেন্স একাউন্ট তৈরি সম্পর্কে কিছুটা হলেও তথ্য পেলেন।তাহলে আপনাকে যদি এডসেন্স (Adsence) থেকে আয় করতে হয় তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটি সাইট অথবা ইউটিউব চ্যানেল(Youtube Channel) তৈরি করতে হবে।তাহলেই আপনি আয় করতে পারবেন।এডসেন্স ব্লগিং হলো ব্লগিং এর মাধ্যমে এডসেন্স থেকে আয় করা।

আমরা জানি Youtube Channel ফ্রিতে খোলা গেলেও ওয়েবসাইট খুলতে টাকার প্রয়োজন পরে।কিন্তু না আপনি ফ্রিতে সাইট ও খুলতে পারেন ১ টাকাও না খরচ করে।এর সু ব্যাবস্থাও করে দিয়েছে গুগল।ব্লগারের মাধ্যমে আপনি ফ্রি সাইট ও খুলতে পারেন।

তাহলে প্রশ্ন আসতে পারে adsense থেকে টাকা আয় করা যায় এত পরিমান কিন্তু এত টাকা তারা দেয় কোথার থেকে?এর উত্তর হলো গুগল( google) তাদের এডওয়ার্ড (Adword) এর মাধ্যমে।আপনি যদি গুগলে কোন বিজ্ঞাপন প্রদান করতে চান তাহলে এই এ্যাডওয়ার্ডের সাহায্য গ্রহন করতে হবে।গুগল এখান থেকে গ্রহন করা অর্থের কিছুটা পাবলিশারদের প্রদান করে এবং বাকিটা তারা লাভ হিসেবে রাখে।

এডসেন্স এর বিকল্প কি আছে?হ্যা অবশ্যই আছে।তবে আপনি তার থেকে যথেস্ট পরিমান আয় করতে পারবেন না।পর্যাপ্ত পরিমান আয় করতে হলে আপনাকে অবশ্যই এডসেন্সের সাহায্য নিতে হবে।কারন এডসেন্স প্রতি ক্লিকে ১-১০ ডলার পর্যন্ত দেয়।সেখানে অন্য এডনেটওয়ার্ক (Adsnetwork) দিয়ে থাকে ১-২ সেন্ট।তাহলে ব্যাপারটা বুঝতে পেরেছেন কেন adsence কে সোনার হরিন বলা হয়।তাই সকলে এডসেন্সের বিকল্প না খুজে এটির উপরেই কঠোর পরিশ্রম ব্যয় করে থাকে।
তাই গুগল এডসেন্স ইনকামের জন্য সবাই এতো মরিয়া হয়ে পড়ে।গুগল এডসেন্স ইউটিউব বা সাইটের জন্য।কারন এডসেন্স ইনকাম শুরু করতে পারলে আর আপনাকে পিছু ফিরে তাকাতে হবে না।

অর্থাৎ এর থেকে বুঝতে পারলাম গুগল এডসেন্স (google adsence) কি?এবং এরা কিভাবে কাজ করে।তবে এটা জানা অত্যন্ত জরুরি এডসেন্স কখনো ইম্প্রেশন (impresion) এর জন্য টাকা দেয় না।শুধু মাত্র ক্লিকের জন্যই অর্থ প্রদান করে।তার মানে হলো আপনি আমার সাইটে এত সময় যত ভিজ্ঞাপন দেখলেন তাতে আমার কোনই আয় হয় নি।যখন আপনি কোন ভিজ্ঞাপন কিলিক করেন তাহলেই আমার কিছু আয় হবে এর মাধ্যমে।এছাড়া আমরা এত কস্টকরি আপনাদের কিছু জানাতে এবং কিছু আয়ের আশায়।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন