ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম চাকরি (part time job) করার রয়েছে বহুবিধ সুবিধা। ছাত্রজীবনে পার্ট টাইম জব বা স্টুডেন্ট জব করার মাধ্যমে আপনি যেমন একদিকে আর্থিকভাবে লাভবান হবেন সেই সাথে এর রয়েছে আরও বহু উপকারিতা। বর্তমানে আপনি অনলাইনেই পার্টটাইম চাকরির খবর জানতে পারবেন। আসুন তাহলে জেনে নিন পার্ট টাইম জব কি? পার্ট টাইম জব এর স্টুডেন্ট জবের উপকারিতা, অপকারিতা এবং কয়েকটি জনপ্রিয় পার্ট টাইম জব সম্পর্কে!

part time job
পার্ট টাইম জব কি (what is part time job)? পার্ট টাইম জব (part time job) হচ্ছে একটি ইংরেজী শব্দ! যার বাংলা আভিধানিক অর্থ হচ্ছে "খণ্ডকালীন চাকরি" অর্থাৎ এটি স্বাভাবিক চাকরির মত আপনাকে দিনের সম্পূর্ণ সময় কাজ করতে হবে না। অথবা সপ্তাহের নির্দিষ্ট কোন দিন কাজ করার নামই হচ্ছে পার্ট টাইম জব। স্বাভাবিক ভাবে সপ্তাহে 30 ঘণ্টার কম সময় কাজ করাকে পার্ট টাইম জব বলা হয়। এবং পার্টটাইম জবের ক্ষেত্রে কাজ বিভিন্ন শিফটে বিভক্ত থাকে।

বিশেষত এসকল পার্টটাইম জব করে থাকে কলেজ বা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। কারণ এর মাধ্যমে তারা তাদের লেখাপড়ার খরচ সহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচ পুষিয়ে নিতে পারেন। এবং ক্ষেত্রবিশেষে পার্টটাইম জবের ভিন্নতা দেখা যায়।

পার্ট টাইম জব বা খণ্ডকালীন চাকরি এর উপকারিতা (Benefits of a part-time job): বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশের প্রেক্ষাপটে অধিকাংশ শিক্ষার্থীই পারিবারিকভাবে অসচ্ছল। আর এ কারণে তাদের পরিবার পড়াশোনার খরচ এবং তাদের আনুষঙ্গিক অন্যান্য খরচ মেটাতে হিমশিম খেয়ে যায়। যার কারণে শিক্ষার্থীরা বেছে নেয় পার্ট টাইম জব বা খণ্ডকালীন চাকরি  পথ কে। তবে এর ফলে একজন শিক্ষার্থী যে শুধুমাত্র আর্থিক ভাবে উপকৃত হচ্ছে তা কিন্তু নয়। আর্থিক উপকারিতার পাশাপাশি রয়েছে আরো অনেক গুলো উপকারী দিক।

আর্থিক উপকারিতা: যেখানে একটি পরিবার তার পরিবারের খরচ মেটানোর পরে একজন সন্তানদের শিক্ষার খরচ মেটাতে হিমশিম খেয়ে যায়। সেখানে একজন শিক্ষার্থীর পড়ালেখার খরচ বাদেও আরো অনেক খরচ থাকে। যেগুলোর জন্য তাকে পরিবারের উপর নির্ভরশীল হতে হয়। কিন্তু পার্ট টাইম জব হচ্ছে এমন একটি পন্থা যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার খরচ এর পাশাপাশি অন্যান্য খরচ মেটাতে পারে।

পরনির্ভরশীলতা দূর করে: যখন একজন শিক্ষার্থী পার্ট টাইম জব বা খণ্ডকালীন চাকরি ভেতরে প্রবেশ করে তখন তার পরনির্ভরশীলতা দূর হয়। এবং তার কোন কাজের জন্য অর্থের প্রয়োজন হলে তাকে পরিবার বা অন্যের মুখাপেক্ষী হতে হয় না।

দক্ষতা বৃদ্ধি (skill development): পার্টটাইম জব বা স্টুডেন্ট জবের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র যে অর্থের যোগান এবং পরনির্ভরশীলতা দূর করে তা নয়। বরঞ্চ এটি আমাদের দক্ষতা ও অনেক গুণ বৃদ্ধি করে। আর বর্তমান যুগে একাডেমিক পড়াশোনার পাশাপাশি বাস্তব অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতার কতটুকু প্রয়োজনীয়তা রয়েছে তা আমরা সকলেই জানি। কারণ একটি স্টুডেন্ট যখন পার্ট টাইম জব করে তখন তার ভিতরে দক্ষতা চলে আসে। যা তাকে ভবিষ্যৎ জীবনে সফল হতে সহযোগিতা করে।

আত্মবিশ্বাস অর্জন: যে কোন ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করতে হলে আত্মবিশ্বাস এর প্রয়োজনীয়তা অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ।  কারণ আপনার ভিতর আত্মবিশ্বাস না থাকলে আপনি কখনোই সফলতার স্বাদ গ্রহণ করতে পারবেন না। আত্মবিশ্বাস হচ্ছে এমন একটা জিনিস যা আমাদের সফলতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিতে পারে। আর পার্টটাইম জব বা স্টুডেন্ট জবের ক্ষেত্রে আপনাকে যেমন অর্থ এবং দক্ষতা অর্জনের সুযোগ দিচ্ছে। ঠিক তেমনি এটি আপনাকে আত্মবিশ্বাস অর্জনে সহায়তা করে।  প্রায়শই আমরা অনেক ক্ষেত্রে কাজ করতে গেলে চিন্তা করি কাজটি আমি পারবো কিনা। অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় এই "পারব কিনা" এই চিন্তার কারণে আর কাজটি করা হচ্ছে না। কিন্ত যখন আপনার ভিতরে আত্মবিশ্বাস চলে আসবে তখন আপনি খুব সহজেই নতুন একটি কাজ শুরু করতে পারবেন এবং তাতে সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

পরিচিতি লাভ: আপনি যখন স্টুডেন্ট অবস্থায় পার্ট টাইম জব করবেন তখন আপনার বিভিন্ন মানুষের সাথে আলাপ হবে।  যার ফলে আপনার একটি পরিচিতি তৈরি হবে। এবং এটি আপনাকে বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করবে। যেমন চাকরির ক্ষেত্রে বা লেখাপড়া শেষে আপনি যে কাজ করতে চাইবেন সে ক্ষেত্রে এটি আপনাকে সহায়তা করবে।

বাজে অভ্যাস থেকে পরিত্রান পাওয়া: আমাদের অনেকেরই অনেক ধরনের বাজে অভ্যাস রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সকালবেলা দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা বা রাতে দেরি করে ঘুমাতে যাও। অনেকের ক্ষেত্রে বন্ধুদের সাথে অতিরিক্ত পরিমাণে আড্ডা দেওয়া যা ফলশ্রুতিতে খারাপ বাজে অভ্যাসে পরিণত হতে পারে। আপনি যদি পার্ট টাইম জব করে থাকেন তাহলে আপনার এ সকলের জন্য যথেষ্ট সময় থাকবে না যা আপনাকে এই সমস্ত বাজে অভ্যাস থেকে দূরে রাখবে।

যাই হোক আমরা পার্ট টাইম জব কি এবং পার্ট টাইম জব আর স্টুডেন্ট জব এর উপকারিতা সম্পর্কে জানতে পারলাম। এবার আসুন জেনে নেই 2021 সালের পেক্ষাপটে কয়েকটি জনপ্রিয় পার্ট টাইম জব সম্পর্কে:

অনলাইন পার্ট টাইম জব (online part time job): স্টুডেন্টদের জন্য পার্ট টাইম জব রয়েছে বহুবিধ। তবে এসবের মধ্যে বর্তমান সময়ে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অনলাইনে পার্ট টাইম জব করা। এর মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই আয় করতে পারবেন। এবং আপনার সময় মত কাজ করার মাধ্যমে! এগুলোর মধ্যে জনপ্রিয় হচ্ছে ডাটা এন্ট্রি (data entry),  সিপিএ মার্কেটিং (CPA Marketing), ব্লগিং (Blogging) ইত্যাদি।

হোম টিউটর (home tutor): স্টুডেন্ট অবস্থায় পার্টটাইম জবের ক্ষেত্রে যতগুলো পন্থা বা উপায় রয়েছে তার মধ্যে সবচাইতে সেরা উপায়টি হচ্ছে টিউশন! আচ্ছা বলুনতো টিউশন কে কেন সেরা বললাম বা কি কারনে? টিউশন কে সেরা বলার অবশ্যই কতগুলো কারণ রয়েছে। কারণ টিউশন এর মাধ্যমে আপনি একদিকে যেমন আপনার আর্থিক সমস্যা দূর হবে। তেমনি এটি আপনার ছাত্র জীবনের উপর ও পজেটিভ প্রভাব বিস্তার করবে। কারণ টিউশন করার মাধ্যমে আপনার লেখাপড়ার প্রতি চর্চা থাকবে। এবং যেহেতু আপনি লেখাপড়া করাচ্ছেন তাই আপনার জ্ঞান ও অনেক গুণ বৃদ্ধি পাবে।

পার্ট টাইম অফিস জব (part time office job) : বর্তমান সময়ে অধিকাংশ কোম্পানি কিংবা প্রতিষঠান ফুলটাইম কর্মচারী নিয়োগের পাশাপাশি পার্টটাইম চাকরির সুযোগ দিয়ে থাকে। আপনি চাইলে এই পার্টটাইম চাকরি মাধ্যমে আপনার প্রয়োজনীয় আর্থিক চাহিদা মিটিয়ে নিতে পারেন। সেই সাথে আপনার কাজের দক্ষতা অর্জন ও হয়ে যাবে!

পার্টটাইম রাইড শেয়ারিং (time ride  sharing) : বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে রাইড শেয়ারিং (ride sharing) খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। পাঠাও কিংবা উবার সফলতার সাথে এই রাইড শেয়ারিং সার্ভিস দিয়ে আসছে দীর্ঘদিন যাবত। আপনি চাইলে তাদের সাথে রাইড শেয়ারিং এর কাজটি করতে পারেন। এসেছে আপনার প্যাসেঞ্জার খোঁজার কোন ঝামেলা থাকবে না। যদি আপনি ঠিকঠাক ভাবে ড্রাইভিং করতে পারেন। কারণ পাঠাও কিংবা উবার আপনাকে প্যাসেঞ্জার খুঁজে দেবে।  একই সাথে আপনার মাধ্যমে যথেষ্ট পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

পার্ট টাইম জব বা খণ্ডকালীন চাকরি ও অসুবিধা সমূহ: আমরা সকলেই জানি যে সকল জিনিস এর সুফল রয়েছে তার কিছু কুফল অবশ্যই রয়েছে। তবে এ সকল কুফল বা অসুবিধা খুবই সামান্য। সেরকমই পার্টটাইম চাকরির ক্ষেত্রেও কিছু অসুবিধা রয়েছে। যেমন ধরুন আপনি একটি স্টুডেন্ট পড়ালেখার পাশাপাশি পার্টটাইম জব করছেন এর কিছু বিরূপ প্রতিক্রিয়া আপনার লেখাপড়ার উপর পড়তে পারে। যেমন পর্যাপ্ত পরিমাণে স্টাডি করতে না পারা। খন্ডকালীন চাকরির কারণে আপনার দিনের অনেকটা সময় চাকরির ক্ষেত্রে খরচ হয়ে যাচ্ছে। এর পাশাপাশি আপনাদেরও এখন পড়ালেখা করতে হবে তখন ক্লান্তি অনুভব হওয়া খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। এরপরে পড়ালেখায় যথেষ্ট পরিমাণ সময় দেয়া সম্ভব হয়ে ওঠেনা। তবুও আমি বলব পড়ালেখার পাশাপাশি পার্টটাইম জব এর কোন বিকল্প নেই। সেটা আপনার আর্থিক সংকট থাক বা না থাক আপনি উভয় ক্ষেত্রে উপকারিতা পাবেন।

আর্টিকেলটির মাধ্যমে পার্ট টাইম জব বা খণ্ডকালীন চাকরি কি? এবং পার্টটাইম জবের বহুবিধ অসুবিধা সহ বেশ কয়েকটি পার্টটাইম জবের সেরা ক্ষেত্র সম্পর্কে জানতে পারলেন। আপনার চোখে আর্টিকেলটি ভালো লাগে থাকে তাহলে আপনারা যে সকল বন্ধু বান্ধব বা পরিচিত লোকজন পার্টটাইম জবের কথা ভাবছে তাদের কাছে শেয়ার করতে ভুলবেন না! হয়তো আপনার একটি শেয়ার আপনার বন্ধুদেরকে একটি সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহযোগিতা করতে পারে!

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো