ভাব সম্প্রসারণ:

অর্থসম্পত্তির বিনাশ আছে কিন্তু জ্ঞানসম্পদ কখনো বিনষ্ট হয় না।

অথবা, ধন সম্পদের ক্ষয় আছে কিন্তু জ্ঞান সম্পদের ক্ষয় নেই।

মূলভাব: পৃথিবীতে অর্থকে সম্পদ বলে মনে করলেও তার কোনো স্থায়িত্ব নেই-তার বিনাশ ঘটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু জ্ঞানের যত এত মহামূল্যবান সম্পদ আর কিছুই নেই। জ্ঞানের কোনো বিনাশ নেই, চিরদিন মানুষের কল্যাণে লাগে। জ্ঞান তাই অবিনশ্বর। অর্থ সাময়িক কিন্তু জ্ঞান চিরন্তন।

ভাব সম্প্রসারণ: অর্থসম্পত্তির বিনাশ আছে কিন্তু জ্ঞানসম্পদ কখনো বিনষ্ট হয় না।  অথবা, ধন সম্পদের ক্ষয় আছে কিন্তু জ্ঞান সম্পদের ক্ষয় নেই।    মূলভাব: পৃথিবীতে অর্থকে সম্পদ বলে মনে করলেও তার কোনো স্থায়িত্ব নেই-তার বিনাশ ঘটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু জ্ঞানের যত এত মহামূল্যবান সম্পদ আর কিছুই নেই।
সম্প্রসারিত ভাব : পৃথিবীতে মানুষ সুখের জন্য ধন-সম্পদ সংগ্রহ করে। অর্থের জন্য মানুষ জীবন সাধনায় নিয়োজিত হয়। কিন্তু অর্থ ও ধন-সম্পদ চিরস্থায়ী নয়; সেগুলো যেকোনো সময় ক্ষয়প্রাপ্ত ও ধ্বংস হয়ে যেতে পারে। অর্থ সম্পদের পাশাপাশি জ্ঞানের কথা বিবেচনা করলে সহজেই বোঝা যায় যে, ধন-সম্পদের মতো জ্ঞান নষ্ট হয় না। জ্ঞানের চর্চা চিরদিন ধরে চলছে, চলবে। জ্ঞানের প্রসার ঘটছে বহু যুগ ধরে। জ্ঞান মানুষকে সভ্যতার আলোকে নিয়ে এসেছে। জীবনের বিকাশের জন্য জ্ঞানের অবদানের সীমা নেই। জ্ঞান কখনো বিনষ্ট হয় না; বরং প্রচারের মাধ্যমে বহুগুণে ছড়িয়ে যায়। জ্ঞানী মানুষ একসময় পৃথিবী থেকে বিদায় নেন, কিন্তু তাঁর মূল্যবান বাণী যুগ যুগ ধরে মানুষের কল্যাণের কাজে লাগে। একজনের জ্ঞান অপরের মনে স্থান পায়। এভাবে কালে কালে জ্ঞানের প্রসার ঘটে। জ্ঞানের প্রসারের এ বৈশিষ্ট্যের জন্য এর অক্ষয় অব্যয় প্রকৃতির পরিচয় মেলে। ধন-সম্পদের সঙ্গে জ্ঞান সম্পদের এখানেই ভিন্নতা।

মন্তব্য : জ্ঞান সম্পদই বড় সম্পদ, জ্ঞানেই সমৃদ্ধি। জ্ঞান সম্পদের মাধ্যমে মানুষ জাগ্রত করতে পারে নিজের ক্ষমতাকে সেবাদানকরতে পারে বিশ্বমানবতাকে। তাই মানুষের উচিত ধনের ব্যাপারে গুরুত্ব না দিয়ে জ্ঞানার্জনে মনোযোগী হওয়া।

নবীনতর পূর্বতন
close