রোহিঙ্গা বসবাসকারী এলাকার নেটওয়ার্ক বন্ধের নির্দেশ বিটিআরসি কর্তৃপক্ষের

 বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের  সবচাইতে বড় সংকট হচ্ছে রোহিঙ্গা সংকট। রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশ বিভিন্ন প্রতিকূলতার সম্মুখীন হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিটিআরসির নির্দেশ দিয়েছে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোবাইলের সিম কার্ড বিক্রিে ওপর অনির্দিষ্টকালের  নিষেধাজ্ঞা। সম্প্রতি এক জরিপে দেখা গেছে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বর্তমানে প্রায় নয় লাখ এর উপরে মোবাইল সিমকার্ড ব্যবহৃত হচ্ছে।  সিমকার্ড বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি প্রতিরাতে মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধের আদেশ দিয়েছে বিটিআরসি কর্তৃপক্ষ। এর ধারাবাহিকতায় প্রতিরাতে 3g এবং 4g নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখা হচ্ছে রোহিঙ্গা ক্যাম্প  এলাকার।
রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নেটওয়ার্ক সেবা বন্ধ প্রতিরাতে

  মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের উপরে মিয়ানমার সরকারের বর্বরোচিত হামলার কারণে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় বিপুল পরিমাণে রোহিঙ্গা। তারা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম এবং উখিয়া  অঞ্চলে আশ্রয় নেয়। প্রথম অবস্থায় তাদের মানবতার দৃষ্টি থেকে আশ্রয় দেয়া হলেও বর্তমানে এই রোহিঙ্গা সংকট বাংলাদেশের জন্য বড় বিপর্যয়ের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার বিটিআরসির মোবাইল অপারেটর কোম্পানির  প্রধানদের সাথে বৈঠকে  বিটিআরসি'র সিদ্ধান্ত নেয় কক্সবাজারের টেকনাফে এবং উঠিয়া দুই উপজেলায়  রোহিঙ্গা বাস করে  করে সেসব এলাকার সিম কার্ড বিক্রয় অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেওয়া হয়। এবং পাশাপাশি প্রতিরাতে থ্রিজি এবং ফোরজি নেটওয়ার্ক বন্ধের নির্দেশ দেয় বিটিআরসি কর্তৃপক্ষ।

 এই দুই এলাকায় মদ লাখের উপরে মোবাইল সিম ব্যবহার করা হবে। এসব এলাকার সিম  ব্যবহারকারীদের পরিচয় শনাক্তকরণের জন্য নির্দেশ দেয় বিটিআরসি কর্তৃপক্ষ। এবং মোবাইল নেটওয়ার্ক সুবিধা মন থেকে নির্দেশ দেয় মোবাইল ফোন অপারেটরদের। এর সাথে বাংলাদেশের মোবাইল অপারেটরের নেটওয়ার্ক মিয়ানমারের মধ্যে রয়েছে সে সকল নেটওয়ার্ক বাংলাদেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে বিটিআরসি কর্তৃপক্ষ।