প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ কাকে বলে আসুন জানি গল্পে গল্পে

পিয়াল উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশ করে উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য রাশিয়া গেল। এয়ারপোর্টে নামার পর সে পড়লাম মহা বিপদে।কারণ সে কারো কথাই বুঝতে পারছিল না। কারন পিয়াল বাংলা ভাষা ছাড়া আর কোন ভাষা বোঝে না।আর সবাই কথা বলছিল রাশিয়ান ভাষায়।তার সঙ্গে ছিল তার বন্ধু ফারহান। সে জানতো রাশিয়াতে রাশিয়ান ভাষায় লেখাপড়া করতে হয়। তাই সে বাংলাদেশ থেকেই রাশিয়ান ভাষা শিখে গিয়েছিল।তখন ফারহান রাশিয়ানদের কথা বাংলায় অনুবাদ করে পিয়ালকে বলতো আর পিয়ালের  কথা রাশিয়ান ভাষা অনুবাদ করে রাশিয়ানদের বলতো।এভাবেই রাশিয়াতে পিয়ালের সমস্যার সমাধান হয়। এর থেকে আমরা বুঝতে পারছি ভাষা কি, জাতী ও বর্ণভেদে আমরা বিভিন্ন ভাষার সাথে পরিচিত হই। বাংলা, ইংরেজি, হিন্দি,স্প্যানিশ, জার্মান ইত্যাদি। এসব ভাষা ব্যবহার করে মানুষ পরস্পরের সাথে ভাব বিনিময় করে।প্রতিটি ভাষার বর্ণ যতিচিহ্ন শব্দসমষ্টি ছাড়াও নির্দিষ্ট ব্যাকরণ থাকে। অর্থবোধক যোগাযোগের জন্য প্রয়োজনে ব্যাকরণ বিধি সঠিকভাবে অনুসরণ করতে হয়।
what is programming language 

 বিভিন্ন কাজ করার জন্য বর্তমানে আধুনিক যন্ত্রের ব্যবহার দেখা যায়। মানুষের দেয়া নির্দেশ অনুধাবন করা এবং সেই অনুযায়ী কাজ করার জন্য এসব যন্ত্রের অভ্যান্তরীণ বর্তনী বিশেষ নিয়মে বিন্যাস করা থাকে। ফলে কোনো নির্দেশ সাপেক্ষ কোন কাজ করতে হবে সেটি সংশ্লিষ্ট যন্ত্রটি বুঝতে পারে।

 কম্পিউটারের সাহায্যে কোন সমস্যা সমাধানের উদ্দেশ্যে ধারাবাহিকভাবে সঠিক বিন্যাস অনুযায়ী নির্দিষ্ট নিয়মে তৈরি নির্দেশ বা নির্দেশমালা কে বলা হয় প্রোগ্রাম। প্রোগ্রাম রচনার জন্য ব্যবহৃত বর্ণ-চিহ্ন ও ব্যাকরণ মিলে গঠিত হয় প্রোগ্রামিং ভাষা বা প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ। প্রোগ্রামিং ভাষার একমাত্র প্রয়োগ হল অর্থবোধক প্রোগ্রাম তৈরি করা প্রোগ্রাম অর্থবোধক না হলে তা কম্পিউটার বুঝতে পারে না অথবা নির্বাহ করলেও কোনো ফলাফল উৎপন্ন হয় না। কম্পিউটারকে নির্দেশ  প্রদানযোগ্য প্রোগ্রাম তৈরির জন্য যে সকল ভাষা ব্যবহার করা হয় সেগুলো কি বলা হয় প্রোগ্রাম ভাষা।

 গঠন বিচার এবং মানুষের বোধগম্য তা বিবেচনায় প্রোগ্রামিং ভাষাকে মোট ছয়টি স্তরে ভাগ করা হয়।
 স্তর গুলো হল-
১- মেশিন ভাষা(machine language)
২-অ্যাসেম্বলি ভাষা(assembly language)
৩-মধ্যস্তরের ভাষা(mid level language)
৪- উচ্চস্তরের ভাষা(high level language)
৫-চতুর্থ প্রজন্মের ভাষা(fourth generation language)
৬-পঞ্চম প্রজন্মের ভাষা (fifth generation language)

 উপরোক্ত আলোচনা থেকে আমরা খুব সহজেই বুঝতে পারলাম যে কোন ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র বা কম্পিউটার কে পরিচালনা করতে যে ভাষা ব্যবহার করা হয় তাকে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ বলা হয়। আমরা বাঙালিরা যেমন বাংলা ভাষায় কথা বলি।আমরা বাংলা ভাষা বুঝি। কম্পিউটার তেমন প্রোগ্রামিং ভাষা বোঝে। কম্পিউটার তার ইনপুটে প্রোগ্রামিং ভাষা গ্রহণ করে এবং তা তার সিস্টেম এর মধ্য দিয়ে আমাদের বোধগম্য ভাষায় ফলাফল প্রদর্শন করে।