বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ভাবসম্প্রসারন:
বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি
 চির-কল্যাণকর,
অর্ধেক তার করিয়াছে নারী,
 অর্ধেক তার নর।
Bisse ja kisu mohan

মূলভাব : নারীরা সমাজেরই অর্ধাংশ। নারীকে বাদ দিয়ে সমাজের সার্বিক কল্যাণ বা অগ্রগতি সম্ভব নয়। কেননা আদর্শ সমাজ রচনায় নারী ও পুরুষ একে অপরের সহকর্মী।

ভাব-সম্প্রসারণ : পৃথিবী নামক যানের দুটি চাকা। তা হলাে- নর ও নারী। এর একটিকে বাদ দিলে যানটি চলার অযােগ্য হয়ে পড়বে-এটাই সত্য। আর এ দুই চাকা বিশিষ্ট যান সুদীর্ঘকাল ধরে সভ্যতার পথে এগিয়ে চলছে। মূলত পৃথিবীর এ রূপ-সৌন্দর্য, নানা রকম ঐশ্বর্য ও সম্পদের পূর্ণতার পেছনে মানবজাতির দুই শ্রেণিরই অবদান রয়েছে। অথচ এ পৃথিবীর পুরুষেরা তা মানতে নারাজ। ফলে পুরুষশাসিত এ সমাজে সর্বক্ষেত্রে নারীরা হচ্ছে অবহেলিত।

কোনাে কোনাে সমাজে নারীরা ঘরের বাইরেও বের হতে পারে না। স্বাভাবিক
জীবন যাপন তাদের জন্য নিষিদ্ধ। এ সামাজিক বৈষম্যের অবসান হওয়া দরকার । পুরুষ তার পেশিশক্তি, আকার-আকৃতি আর সমাজশক্তির জোরে পৃথিবী শাসন করবে তা হতে পারে না। তাই আজ নারীর যথার্থ মূল্যায়ন করতে হবে। বর্তমানে সমাজের প্রতিক্ষেত্রে নারীদের অবাধ বিচরণ। নারী ছাড়া পুরুষ বিকলাঙ্গও বটে। তাই নারীকে তার মর্যাদার স্বীকৃতি দিতে হবে। শুধু কথায় নয়, আইন করে তাদের দিতে হবে। সম-অধিকারের মর্যাদা। তাহলেই পৃথিবী এতদিনের অভিশাপমুক্ত হবে।

মন্তব্য: পৃথিবীর যাবতীয় মহান সৃষ্টির পেছনে নারীর সেবা, যত্ন ও সাধনা বিদ্যমান। তাই নারীকে সম্মান করা আমাদের সবার কর্তব্য।

নবীনতর পূর্বতন