আমাদের এই বিশাল পৃথিবীতে কত ধরনের মানুষ রয়েছে।কেউ ফর্সা,শ্যামলা আবার কেউ কালো।মানুষ হিসেবে সবাই সমান হলেও সৌন্দর্যের দিক থেকে ফর্সা মানুষ সবার প্রিয়।তাই সকলেই ফর্সা হওয়ার উপায় খুঁজি।স্থায়ীভাবে ত্বক ফর্সা করার উপায় হিসেবে আমরা অনেক সময় বিভিন্ন কেমিক্যাল যুক্ত ত্বক ফর্সাকারী ক্রিম ব্যাবহার করে থাকি।আবার অনেকেই ত্বক ফর্সা করার ক্যাপসুল বা ত্বক ফর্সাকারী ঔষধ সেবন করে থাকি।যার রয়েছে বিভিন্ন পার্শ প্রতিক্রিয়া এবং যার ফলে বিভিন্ন ধরনের জটিলতা হতে পারে।শরীরের ত্বক ফর্সা করার উপায় হিসেবে ঘড়োয়া উপায় গুলো অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করে।তাহলে স্থায়ীভাবে ত্বক ফর্সা করার উপায় গুলো জেনে নেওয়া যাক।
স্থায়ীভাবে ত্বক ফর্সা করার উপায়
ত্বক ফর্সা করার প্রাকৃতিক ফেসিয়াল কয়েকটি প্যাক সম্পর্কে জেনে নেই।যা আপনার শ্যামলা ত্বক দ্রুত ফর্সা করে তুলবে-
১:হলুদ এবং টমেটোর ফেইসপ্যাক-আমরা জানি ত্বকে যত্নে হলুদ একটা প্রাকৃতিক উপাদান।ত্বকে পরিচর্যায় হলুদ বিভিন্ন ধরনের ব্যাবহার রয়েছে।এক টিমটি হলুদ এবং এক চামচ টমেটো রস নিন।ভালভাবে পেস্ট তৈরি করতে হবে।এর পরে সারা মুখে ভালোভাবে মাখিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন।এবং এর পরে ধুয়ে ফেলুন।নিয়মিত ব্যাবহারে আপনার মুখের ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল আর দীপ্তিময়।


২:টক দই এবং ওটমিলের মাস্ক-ত্বকের পরিচর্যায় টক দই একটি অন্যতম উপাদান।এটি ত্বক ফর্সা করার জন্য বহুল পরিমাণে প্রচলিত।এক টেবিল চামচ ওটমিল সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন।এবং সকালে তার সাথে এক চামচ টক দই ভালভাবে মিশান।এবং তা সারা মুখে ভালোভাবে মাখিয়ে নেই।এটি বিশেষত ড্রাই টু নরমাল স্কিনের জন্য অত্যন্ত কার্যকর একটি প্যাক।এটি নিশ্চিত ভাবেই আপনার ত্বককে মসৃণ এবং ফর্সা করে তুলবে।

৩:বেসনের ফেইসপ্যাক-বেসন আমাদের ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখার জন্য অত্যন্ত ভালো একটি উপাদান।এবং এটি একটি সহজলভ্য উপাদানও বটে।বেসনের সাথে বাটার মিল্ক ভালোকরে মিশিয়ে মুখে লাগন।এবং শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।তবে এটি তৈলাক্ত ত্বকে ব্যাবহার করলে ফল পাবেন না।

৪:আমন্ডের ফেইসপ্যাক-ত্বক ফর্সা করার জন্য আপনি আমন্ডের ফেইসপ্যাকও ব্যবহার করতে পারেন।এটিও খুবই কার্যকর।আপনি ৫-৬ টি আমন্ড ভিজিয়ে নিন।সারারাত ভিজতে দিন।এবং সকাল বেলা সেগুলো ভালো করে ব্লেন্ড করুন।এবং তার সাথে বাটার মিল্ক বা মালাই মিশিয়ে নিন ভালোভাবে।এবং ১০-১৫ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখুন।এর পরে স্ক্রাব করুন কিছুক্ষণ।এবং এরপরে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।এবং দেখুন ম্যাজিক!


৫:চন্দনের গুড়ো-প্রাকৃতিক ভাবে ত্বক ফর্সা করার জন্য চন্দন সেই আদি কাল থেকে ব্যাবহৃত হয়ে আসছে।কিছু পরিমান চন্দনের গুড়ো নিন এবং তাতে পানি মেশান।এর পরে তা সারা মুখে লাগান ও কিছু সময় রেখে দিন।এবং ধুয়ে ফেলুন এতে ত্বক ফর্সাই হবে না শুধু আপনার ত্বক ফ্রেশ ও হবে।

৬:লেবু এবং মধুর ফেসপ্যাক:লেবু এবু মধু দুটোই ত্বককে উজ্জীবিত করার শক্তি রাখে।কিছুটা মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে নিন।এবং সেটি সম্পুর্ন মুখে ভালোভাবে মাখিয়ে নিন।এবং ২০-৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন।এবং তারপর ধুয়ে ফেলুন দেখুন ত্বক কেমন গ্লো করছে!

তবে দ্রুত ফলাফল অর্জন করতে হলে এটি নিয়মিত ব্যাবহার করতে হবে।তাহলেই পেয়ে যাবেন ফর্সা,উজ্জ্বল ও লাবন্যময় ত্বক প্রাকৃতিক উপায়ে!

আরো দেখুন-

📚একটি মন্তব্য করুন📚

নবীনতর পূর্বতন